লাইফ স্টাইল

সকাল-সন্ধ্যা ভিন্ন স্বাদের নাস্তা খেতে বাড়িতেই বানিয়ে ফেলুন এই ‘ধোকলা’, রইল সহজ সরল রেসিপি

ধোকলা হল গুজরাটের এক অন্যতম প্রিয় খাবার। সকাল-সন্ধ্যার নাস্তায় এই ধোকলা বেশ জনপ্রিয়। এই পদটি রান্না করাও খুব সহজ। যদি আগে থেকে এই পদটি বানানোর প্রস্তুতি নিয়ে থাকেন, তাহলে বেশি সময়ও লাগবে না এই পদটি তৈরি করতে। আজকের এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে আমি নরম, তুলতুলে ধোকলার রেসিপি পরিবেশন করবো আপনাদের কাছে।

ধোকলা তৈরি করতে লাগবে বেসন, চিনি, নুন, লেবুর রস, কারিপাতা বা ধনেপাতা, বেকিং পাউডার, বেকিং সোডা, কালো সর্ষে, কাঁচা লঙ্কা, আদা-রসুন বাটা, অলিভ বা সানফ্লাওয়ার অথবা সয়াবিন তেল, সর্ষের তেল, হলুদ গুঁড়ো।

রন্ধন প্রণালী:
১) ধোকলা তৈরি করার জন্য প্রথমে একটি পাত্রে পরিমাণ মতো বেসন, নুন, চিনি, হলুদ গুঁড়ো এবং সামান্য লেবুর রস নিয়ে উপকরণগুলিকে মিশিয়ে নিতে হবে। লেবুর রসের বদলে সাইট্রিক অ্যাসিডও ব্যবহার করা যেতে পারে। এরপর মিশ্রণটির মধ্যে পরিমাণ মতো জল, আদা-রসুন বাটা, অলিভ বা সানফ্লাওয়ার অথবা সয়াবিন তেল দিয়ে ব্যাটার তৈরি করে নিতে হবে।

২) এরপর ওই ব্যাটারটিকে আধঘন্টা মতো রেখে দিতে হবে, যাতে ধোকলা বেশ নরম ও তুলতুলে হয়। এরপর একটি পাত্রে তেল মাখিয়ে আধঘন্টা রেখে দিতে হবে। তারপর প্রেসার কুকারের মধ্যে পরিমাণ মতো জল দিয়ে একটি ধাতুর তৈরি স্ট্যান্ড বসিয়ে দিতে হবে।

৩) অন্যদিকে, আগে থেকে তৈরি করে রাখা ব্যাটারের মধ্যে বেকিং সোডা এবং বেকিং পাউডার ভালো করে মিশিয়ে তেল মাখিয়ে রাখা পাত্রটির মধ্যে ঢেলে দিতে হবে। তারপর ওই পাত্রটিকে প্রেসার কুকারের মধ্যে রাখা স্ট্যান্ড এর ওপর বসিয়ে হালকা আঁচে আধঘন্টা মতো ঢাকনা দিয়ে রেখে দিতে হবে।

৪) আধঘন্টা পর একটি কাঠি বা চামচ ওই ব্যাটারের মধ্যে ঢুকিয়ে দেখতে হবে ব্যাটারের অংশ চামচ বা কাঠির গায়ে লাগছে কিনা। কাঠি বা চামচের গায়ে ওই ব্যাটারের অংশ যদি না লাগে, তাহলে জানবেন তৈরি হয়ে গিয়েছে ধোকলা। এরপর ধোকলা ঠান্ডা করার জন্য প্রেসার কুকার থেকে বের করে রাখতে হবে।

৫) অন্যদিকে, সিরাপ তৈরি করার জন্য ফ্রাইং প্যানে পরিমাণ মতো তেল, কারিপাতা বা ধনেপাতা, কালো সর্ষে, পরিমাণ মতো জল এবং চিনি দিয়ে ভালো করে ফুটিয়ে নিতে হবে। জল ফুটে যাওয়ার পর সেই জলকে ঠান্ডা করার জন্য রেখে দিতে হবে।

৬) এরপর ধোকলা ঠান্ডা হয়ে গেলে সেটিকে অন্য একটি পাত্রে তুলে, টুকরো করে কেটে, আগে থেকে তৈরি করে রাখা সিরাপ ধোকলার উপর দিয়ে ছড়িয়ে পরিবেশন করলেই প্রস্তুত হয়ে যাবে গুজরাটের প্রিয় খাবার ধোকলা।

Related Articles